fbpx

IT Blog

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
Digital Marketing blog

স্বল্প খরচে কোথায় বিজ্ঞাপন দিবেন আপনি সেটা জানেন কি?সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

বিজ্ঞাপন শব্দটির সাথে আমাদের সকলেরই পরিচয় আছে। ছোটোবেলা থেকে টেলিভিশনে তো আমরা কতো বিজ্ঞাপনই দেখেছি। বিজ্ঞাপন এমন একটা জিনিস যেটা একটা কোম্পানিকে অন্য মাত্রায় নিয়ে যায়টেলিভিশনের বিজ্ঞাপনের কথা মনে করলেই কিন্তু আমাদের মাথায় আর এফ এল, গ্রামীনফোনের নাম চলে আসে।

এর একটি কারন আছে বলুন তো কি ?

এর কারন অতি সাধারন। বর্তমানে টেলিভিশনে এই দুইটি কোম্পানির বিজ্ঞাপন এতো বার বার দেখি যে চাইলেও মাথা থেকে ফেলে দিতে পারি না। তাহলে বোঝাই যাচ্ছে আপনার পণ্য অথবা প্রতিষ্ঠানের প্রচারণার জন্য বিজ্ঞাপনের গুরুত্ব কতোটুকু।

এখানে আপনার একটা প্রশ্ন হতে পারে যে আপনিও কি তাহলে টেলিভিশনেই বিজ্ঞাপন দিবেন ?

আপনি কি জানেন টেলিভিশনে একটা বিজ্ঞাপন দিতে কতো টাকা খরচ হয়? একটা টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দিতে একটা কোম্পানি অনেক টাকা খরচ করে থাকে যা একটা স্টার্ট-আপ কোম্পানির পক্ষে সম্ভব হয়ে উঠবে না।

এবার আসি কম খরচে কোথায় বিজ্ঞাপন দিবেন? 



আপনি জেনে থাকবেন ২০২০ সালের গুগোল সোর্স অনুযায়ী বর্তমানে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ১৬৯ কোটি যার মধ্যে বাংলাদেশেই ফেসবুক ব্যবহারকারী প্রায় সাড়ে তিন কোটি(তথ্যসুত্র-Internet World Stats),যা একজন মার্কেটারের জন্য যথাযথ। সব থেকে বড় কথা এখানে আপনি বিনা টাকাতে পেজ খুলে বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন।

এখন আপনার প্রশ্ন হতে পারে শুধু বিজ্ঞাপন দিলেই কি আপনার বিজ্ঞাপন সবার কাছে চলে যাবে ?

একটা সময় ছিল যখন কোন পেজ থেকে বিজ্ঞাপন দিলেই ভাল রিচ পাওয়া যেত। কিন্তু আপনার হয়তো জানা আছে যে বর্তমানে ফেসবুক মার্কেটে (সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং) প্রতিযোগিতা খুব বেড়ে গেছে। ফেসবুক তার নতুন আপডেটে বিজনেস পেজগুলোর ভিউ প্রায়োরিটি অনেক কমিয়ে দিয়েছে। আপনার যদি পেজে লাখ-লাখ লাইক ও থাকে তারপরও আপনার পোস্ট ৩ ভাগের এক ভাগ মানুষের নিউজফিডে যাবে কিনা সন্দেহ আছে। তাই বলা যায় মার্কেটিং এর জন্য ফেসবুক পেজে পেইড এ্যাড (সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং) আপনাকে অবশ্যই বা বাধ্যতামূলক করতে হবে। তবে আপনি জেনে খুশি হবেন যে ফেসবুকে আপনি খুব কম খরচে পেইড অ্যাড দিতে পারবেন এবং আপনি আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী কাস্টমার খুজে পাবেন। 

উদাহরণ স্বরূপ একটি ছোট  ঘড়ির দোকানের কথা চিন্তা করুন। দোকান ছোট হওয়ার কারনে তার এতো সামর্থ নেই যে সে টেলিভিশনে এ্যাড দিবে। 



তাহলে এই ব্যবসায়ী এখন কি করবে? আসুন জানি এই ব্যবসায়ীর এখন  করনীয় কিঃসোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং?

  • প্রথমে তাকে একটা প্রফেশনাল বিজনেস ফেসবুক পেজ খুলতে হবে অথবা কোনো মার্কেটিং কোম্পানিকে দিয়ে একটা বিজনেস ফেসবুক পেজ বানিয়ে নিতে হবে।
  • পেজের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করার ক্ষেত্রে খরচ কমানোর জন্য প্রথম দিকে প্রতিষ্ঠানের ১৫ থেকে ২০ কিলোমিটারের ভিতর অ্যাড দিতে পারেন কিন্তু পুরো সিটি কাভার করলে ভাল রেজাল্ট পাবেন।
  • যেহেতু ঘড়ির দোকান এই ক্ষেত্রে  টার্গেট করার সময় বয়স বিবেচনায় রাখতে হবে।
  • ফেইসবুক মার্কেটিং করার সময় যেই কাজ গুলি করা নিষেধ ঐ কাজগুলো করা থেকে বিরত থাকতে হবে। 

  • আপনার পোস্ট এমন হতে হবে যেন ক্রেতা দেখেই  কেনার জন্য আগ্রহী হয়ে ওঠে।
  • এই ক্ষেত্রে আপনাকে প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফির দিকে নজর দিতে হবে। প্রোডাক্টের ছবি যেন ক্রেতাকে প্রথম দেখাতেই আকর্ষন করে।
  • আপনার পোস্টের ক্যাপশন আকর্ষণীয় হতে হবে।
  • ক্রেতার মাঝে আপনাকে বিশ্বস্ত হয়ে উঠতে হবে। 

উপরোক্ত কাজগুলো করলেই আপনি কাস্টমারের কাছ থেকে ভাল রেসপন্স পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *